খবর

সোমবার থেকে ৫টাকায় ডিম-ভাত

dim-bhatসঞ্জয় মুখোপাধ্যায়: আবারও মমতাময়ী। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রকল্প কন্যাশ্রী, খাদ্যশ্রী, রূপশ্রী, ঐকশ্রী, যুবশ্রী, স্বাস্থ্যসাথী পর এবার তিনি এলেন এক অভিনব প্রকল্প। যা ভারতে বিরল। মাত্র ৫ টাকায় বাংলায় এবার পাওয়া  যাবে পেট ভর্তি ডিম-ভাতের গ্রাসাচ্ছাদন। আধপেটা নয়, গরিব মানুষ পারবেন পেট পুরে খেতে। দিন সাতেক আগে বাজেটে ঘোষণা করেছিলেন খোদ মুখ্যমন্ত্রী। তারপর সাতদিন যেতে না যেতেই শুরু হচ্ছে ‘মমস কিচেন’ বা ‘মায়ের রান্নাঘর’। সোমবার বিকেল ৩টায় ভার্চুয়ালি এই প্রকল্পের উদ্বোধন করবেন মুখ্যমন্ত্রী। এই থালিতে থাকছে ২০০ গ্রাম চালের ভাত, ডাল, সবজি, ডিম। পাওয়া যাবে আপাতত কলকাতার ১৬টি বোরোতেই পাওয়া যাবে। দুপুরের খাবার। দুপুর ১টা থেকে ২টোর মধ্যে মিলবে এই খাবার। দেবে পুরসভা। পরে ধীরে ধীরে কলকাতা পুরসভার ১৪৪টি ওয়ার্ডেই মিলবে এই পরিষেবা । বোরো এলাকার যে কোনও একটি পয়েন্ট থেকে খাবার সরবারাহ করা হবে। স্কুলে স্কুলে মিড ডে মিল এতদিন দেওয়া হয়েছে। করোনার সময়ে বাড়ি বাড়ি গিয়েও মিড ডে মিল পৌঁছানো গিয়েছে। এবার দরিদ্র প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের জন্য পাঁচ টাকার খাবার। শুধু তাই নয়, ভোটের আগে, গোটা রাজ্যে এই উদ্যোগ চালু হবে বলে খবর। আর এর ফলে গরিব মানুষের আশীর্বাদ যে মুখ্যমন্ত্রীর উপর ঝরে পড়বে, তা বলার অপেক্ষা রাখে না। ইতিমধ্যে এই কারণে রেশন থেকে চালও বরাদ্দ করা হয়েছে। যে মরশুমের যেমন সবজি তেমন তরকারি হবে। প্রকল্পের দায়িত্বপ্রাপ্ত পুর প্রশাসক দেবাশিস কুমার বছর দুয়েক আগে এই ধরণের একটি প্রকল্প শুরু করেছিলেন। শিশুমঙ্গল হাসপাতালের সামনে ৬ টাকায় নিরামিষ ভাতের থালা দেওয়া হতো। এবার ডিম ভাত। মুখ্যমন্ত্রীর এই উদ্যোগ নিশ্চিতভাবে দারুণ জনপ্রিয় হবে। ভোটমুখী বাংলায় আপাতত অ্যাডভান্টেজ তৃণমূলের । এমনটাই মনে করা হচ্ছে।