খবর

‘ভারতের বর্তমান অর্থমন্ত্রী সর্বকালের নিকৃষ্টতম অর্থমন্ত্রী’ – কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়

dankuni-2সুফল তর্কালঙ্কার, হুগলি: কেন্দ্রীয় সরকারের জনবিরোধী নীতি ও প্রতিনিয়ত পেট্রোপণ্যের লাগামছাড়া মূল্যবৃদ্ধি ও কেন্দ্রীয় সরকার দ্বারা অন্যায়ভাবে অধিকাংশ রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থাগুলির বেসরকারিকরনের প্রতিবাদে এই রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস পালন করছে সারা রাজ্যব্যাপী বিক্ষোভ কর্মসূচী। এই বিক্ষোভ কর্মসূচির অঙ্গ হিসাবে সারা রাজ্যে তৃণমূল কংগ্রেস কেন্দ্রীয় সরকারের এই সকল জনবিরোধী নীতির বিরুদ্ধে জোরালো প্রতিবাদের মধ্য দিয়ে বিরোধীতা করে চলেছে। হুগলি জেলার ডানকুনি শহর যুব তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষে ডানকুনি পৌরসভার প্রাক্তন উপ-পৌরপ্রধান দেবাশীষ মুখোপাধ্যায়ের আহ্বানে এই রকমই এক প্রতিবাদ সভায় কেন্দ্রের বিজিপে সরকারের জনবিরোধী নীতিগুলি বিরুদ্ধে সরব হতে দেখা গেল হুগলি জেলার শ্রীরামপুর লোকসভার সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়কে।

তিনি বলেন “এই মূহুর্তে ভারতের অর্থমন্ত্রীর আসনে যিনি রয়েছেন তিনি আমাদের দেশের সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ নিকৃষ্টতম অর্থমন্ত্রী। যিনি এই মূহুর্তে অর্থনীতির পরীক্ষায় বসলে ১০০তে ৫ নম্বর পাবেন।” পেট্রোপণ্যের ক্রমাগত লাগামছাড়া মূল্যবৃদ্ধি ও এই বিষয়ে কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের ব্যর্থতাকে উল্লেখ করে কল্যাণ বাবু বলেন, “যখন বিশ্বের বাজারে ব্যারেল পিছু তেলের দাম অনেকটাই কম তখন আমাদের দেশে মহামান্য কেন্দ্রীয় সরকারের কল্যাণে ও আনুকুল্যে ক্রমাগত বেড়েই চলছে পেট্রোল-ডিজেল-কেরোসিন সহ রান্নার গ্যাসের দাম। যেই মূহুর্তে সারা দেশে লকডাউন তুলে নেওয়া হল তখনই দেখা গেল কোন এক অজ্ঞাত কারণে কেন্দ্রের বিজেপি সরকার বাড়িয়ে চলেছেন পেট্রোপণ্যের দাম, আর এর ফলে নাভিশ্বাস উঠছে দেশের সাধারণ মানুষের।” ssssssssসাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষকে কটাক্ষ করে বলেন, “বাম আমলে কোথায় ছিলেন এই দিলীপ বাবু?” কল্যাণ বাবু দিলীপ ঘোষকে  রাজ্যের সবথেকে বড় জোকার বলে উল্লেখ করেন। তিনি বিজেপিকে গুণ্ডাদের দল হিসাবে আখ্যা দেন এদিন।dankuni-5

dankuni-6

ডানকুনি শহর যুব তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষে ডানকুনি শহর যুব তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি ডানকুনি পৌরসভার প্রাক্তন উপ-পৌরপ্রধান দেবাশীষ মুখোপাধ্যায়ের আহ্বানে ও ডানকুনি শহর তৃণমূল জয়হিন্দ বাহিনী ও ডানকুনি শহর তৃণমূল ছাত্র পরিষদের সহযোগিতায় ডানকুনি চৌমাথায় আয়োজিত এদিনের এই প্রতিবাদ সভায় শ্রীরামপুরের সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন হুগলি জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি দিলীপ যাদব, হুগলি জেলা পরিষদের পূর্ত কর্মাধক্ষ্য বিশিষ্ট তৃণমূল কংগ্রেস নেতা সুবীর মুখোপাধ্যায়, হুগলি জেলা যুব তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি শান্তনু ব্যানার্জী, চণ্ডীতলা যুব তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি কৌশিক শীল, ডানকুনি পৌরসভার প্রাক্তন পৌরপ্রধান ও বর্তমান প্রশাসনিক প্রধান হাসিনা শবনম সহ জেলা তথা রাজ্যের তৃণমূল কংগ্রেসের নেতৃবৃন্দ।

ছবি সৌজন্যে ফেসবুক পেজ