খবর

পেশা নয়, মনের তাগিদে লিখে চলেছেন সুজাতা

Untitled-1স্বরূপম চক্রবর্তী:  স্রষ্টার সঙ্গে সৃষ্টি তেমনই ওতপ্রোতভাবে জড়িত ঠিক যেমন দয়িতার সঙ্গে দয়িতের। সৃষ্টির মধ্যে যে অনাবিল আনন্দ প্রকাশ পায়, তার সমুজ্জ্বল প্রকাশ স্বার্থক হয়ে হয়ে সৃষ্টিকর্তার অভিব্যক্তিতে। বিশেষ করে যখন সেই সৃষ্টির আনন্দ সৃষ্টিকর্তার সঙ্গে সকলে একসুরে নিজেদের অন্তরে বিকশিত করেন। একমাত্র লেখনীই পারে সকল মানুষকে এককরে একটি সুন্দর সামাজিক পরিবেশ ও আমাদের পরিপার্শ্বিক ব্যবস্থার পরিবর্তন আনতে। জন-জাগরণ গঠনে লেখনী চিরকালই নিজের শ্রেষ্ঠত্ব জানান দিয়ে এসেছে। আমাদের নানা ভাষার সাহিত্যভাণ্ডার চিরভাস্বর। আজও তার প্রমাণ রেখে চলেছেন বর্তমানের কবি-লেখকরা। কবির কলমে প্রস্ফুটিত হয় তাঁর অন্তরের, মননের রেখাচিত্র। একটা প্রচলিত ধারনা আমাদের মননে রয়েছে সেটি কবিরা বা লেখকরা আলাদা জগতের বাসিন্দা। অথচ আমরা যদি একটু ভাবি, তাহলে সহজেই ধরা পড়ে কবি বা লেখকেরা আমাদের মতই সাধারণ। একজন ভিন্ন পেশার মানুষ, যাঁর পেশা মানব জীবনের সঙ্গে জড়িত, তাঁর কলম থেকেও যে লেখনী আমাদের সকলের সামনে উন্মোচিত হয় তার মান বা গুণ কোনও অংশে সেই সকল প্রতিষ্ঠিত লেখক বা কবিদের থেকে কম নয়, বরং কিছুটা বেশিই, একথা বলাই যায়।

92a03-9a4f02_3b93dab5c7d14f67afae52ceac3ab2d5mv2

এমনই একজন ডাঃ সুজাতা চট্টোপাধ্যায়, পেশায় যিনি একজন অ্যানেস্থেসিওলজিস্ট, সেই শিশুকাল থেকেই যিনি তাঁর মননে-চিন্তনে কাব্যের বীজ তিনি রোপণ করে চলেছেন। দেখতে দেখতে তিনি প্রকাশ করে ফেললেন তাঁর দ্বিতীয় কবিতার তথা তাঁর তৃতীয় বই।

3b749-9a4f02_0a1a6303df76450fb31ff36c7368e2a1mv2

সম্প্রতি এই উপলক্ষে কলকাতার বিড়লা তারামণ্ডল সভাগৃহে লিটেরোমা পাবলিশিং আয়োজিত এক অনাড়ম্বর সান্ধ্য অনুষ্ঠানে ডাঃ সুজাতা চট্টোপাধ্যায়ের দ্বিতীয় কবিতার বই “ওয়েবস অফ ফরচুন” এর অনুষ্ঠানিক আত্মপ্রকাশ ঘটলো এই শহরের প্রখ্যাত স্ত্রী-রোগ বিশেষজ্ঞ ডাঃ বাসুদেব মুখার্জী, ভাস্বতী রায়, ডক্টর সন্দীপ মুখার্জী, লিটেরোমার অন্যতম প্রধান কর্ণধার সাইবার বিশেষজ্ঞা ঋত্বিকা বন্দ্যোপাধ্যায়, অভিনেতা দেবমাল্য ব্যানার্জী, ক্যানসার রোগ বিশেষজ্ঞ ডাঃ প্রসেনজিত্‍ চ্যাটার্জী, মহেশ গোলানি সহ বিশিষ্ট ব্যক্তিদের উপস্থিতিতে।

এদিন ডাঃ সুজাতা চট্টোপাধ্যায় তাঁর স্ব-রচিত কবিতা ও জীবনের ওঠাপড়া নিয়ে একটি গল্প পাঠ করেন। লিটেরোমার পক্ষ থেকে অনুষ্ঠানের শুরুতে সমাগত অতিথিবৃন্দদের উত্তরীয় ও মেডেল দিয়ে সম্মাননা জানান ঋত্বিকা বন্দ্যোপাধ্যায়।

ডাঃ সুজাতা চট্টোপাধ্যায় বলেন আগামীতে তিনি চেষ্টা করবেন বাংলায় তাঁর নিজস্ব বিষয়ের ওপর কিছু রচনা করতে, যেহেতু তাঁর সকল রচনায় ইংরাজী ভাষায়। এই মুহূর্তের অন্যতম প্রকাশনা সংস্থা লিটেরোমাকে সাধুবাদ, বর্তমানের সঙ্গে গা না ভাসিয়ে একটু অন্যভাবে ভাবার জন্য।

1efab-9a4f02_51435a5163204d4c9eb67ab6f3a56a68mv2

09828-9a4f02_2afa9dc21c6840f781c9711a60cb7e45mv2

rishav-new-2-for-web