উত্‍সব

৬২৬ বছরের মাহেশের উল্টো রথে পারিবারিক তরজা,গোল বাঁধলো কুপন কাণ্ডে

0214563

j-tem.-2

নিজস্ব সংবাদদাতা, হুগলি: ঐতিহাসিক মাহেশে নিজ ধামের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়ে জগন্নাথ, বলরাম, সুভদ্রা। মাসির বাড়ি থেকে ভক্তবৃন্দ ও দর্শনার্থীদের দড়ির টানে রথে চেপে জগন্নাথ দেব পৌছলেন নিজ ধামে। উল্টোরথের দিন মাহেশের রথযাত্রা চাক্ষুষ করতে কয়েক লক্ষে ভক্তের সমাগম হয়। গত দুবছর করোনা আবহে এই ঐতিহাসিক রথযাত্রা বন্ধ ছিল। ভক্তবৃন্দ ও দর্শনার্থীরা তাই আবার রাস্তায় প্রভু জগন্নাথকে নিয়ে রাজপথ ধরে প্রায় দেড় কিলোমিটার পথ অতিক্রম করলেন তারা। জগন্নাথ নিজের বাড়িতে যাচ্ছেন এ শুধু মাহেশ নয়, গোটা ভারতবর্ষ জুড়ে চলল উৎসব। আসছে বছর আবার হবে সোজা রথ ও উল্টো রথ। জয় জগন্নাথ ধ্বনির মাধ্যমে সকল ভক্তবৃন্দের প্রভুর কাছে এটাই কামনা।

advt-2

উল্টোরথে জগন্নাথ দর্শনে মাসির বাড়িতে দর্শনার্থীদের ২০ টাকা করে কুপন কেটে তবেই জগন্নাথ দর্শন করতে হবে, এই ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন মাহেশের জগন্নাথের মাসির বাড়িতে দর্শন করতে আসা ভক্তগণ। এই ঘটনায় ভক্তদের রীতিমত হুমকির সুরে সেবাইত তমাল অধিকারী মন্দির বন্ধের হুমকিও দেন। তিনি আরও বলেন সোজা রথে তাঁর বাবা ও ভাই কুপন ছাপিয়ে প্রচুর টাকা তুলেছে , যে টাকার কোনও হিসাব নেই। অপরদিকে তমালবাবুর ভাই পিয়াল অধিকারী বলেন এই রকম কোনও কিছু সোজা রথে করা হয় নি। আসলে তমাল অধিকারী ও তাঁর স্ত্রী ইচ্ছা করেই তাঁদের বদনাম করার জন্যই এই কাজ করছেন বলেও পিয়াল অধিকারী বলেন।

92a03-9a4f02_3b93dab5c7d14f67afae52ceac3ab2d5mv2

শ্রীরামপুর পৌরসভার পৌর প্রতিনিধিদের হস্তক্ষেপে এদিনের সাধারণ মানুষদের ক্ষোভ কিছুটা প্রশমিত হলেও এই প্রশ্ন সাধারণের মনে ঘুরপাক খাচ্ছে তবে কী জগন্নাথদেবকে নিয়ে পারিবারিক বিবাদ এবার রাস্তায় নেমে এলো, এর সঙ্গে সঙ্গে কিছু ভক্তবৃন্দের মুখে এটাও শোনা গেল মন্দিরে জগন্নাথের ভোগের যে টাকা নেওয়া হয় সেটাও সঠিক নয়। এখন দেখার আগামীতে ভারতের দ্বিতীয় প্রাচীন এই জগন্নাথ ক্ষেত্রের আগামী কী ঐ পারিবারিক বিবাদে মেতে থাকে।

HIRINGFinal advt1efab-9a4f02_51435a5163204d4c9eb67ab6f3a56a68mv2latest-advt-of-jotishadvt-1advt-3advt-4