উত্‍সব

নববর্ষে কলকাতা সাক্ষী থাকল এক শৈল্পিক সন্ধ্যার

jadughar-11নিজস্ব সংবাদদাতা: ১৫ এপ্রিল তারিখটি বাঙালির কাছে বিশেষ উল্লেখযোগ্য। কারণ এই দিনেই সূচনা হয় বাংলা নতুন বছরের। জীর্ণ-পুরাতন সরে গিয়ে নব আনন্দে জেগে ওঠে আপামর বাঙালি। আবার এই দিনটির আরেকটি বিশেষ তাৎপর্য আছে। বিশ্ববিখ্যাত চিত্র শিল্পী লিওনার্দো দ্য ভিঞ্চির জন্মও কিন্তু ১৫ এপ্রিল। বিখ্যাত এই শিল্পীর জন্মদিন উপলক্ষ্যে এই বিশেষ দিনটি বর্তমানে গোটা বিশ্বে পালিত হয় আন্তর্জাতিক শিল্প দিবস বা ওয়ার্ল্ড আর্ট ডে নামে। ভারতের সাংস্কৃতিক রাজধানী কলকাতাতেও এবছর দিনটি বিশেষ ভাবে পালিত হল। নববর্ষের প্রথম দিন বৃহস্পতিবার কলকাতায় প্রথম বারের জন্য উদযাপিত হল এই বিশেষ দিনটি। ইন্টারন্যাশানাল অ্যাসোশিয়েসন অফ আর্ট এবং ইউনেসকো’র তত্ত্বাবধানে ইন্ডিয়ান মিউজিয়াম ও কেন্দ্রীয় সংস্কৃতি মন্ত্রকের বিশেষ উদ্যোগে পালিত হল এই বিশেষ দিনটি।

করোনা আবহে কোভিড বিধি মেনেই ভারতীয় জাদুঘর প্রাঙ্গণে এই বিশেষ দিনটি পালিত হয়। অনুষ্ঠানে যোগ দেন বহু বিশিষ্ট চিত্র শিল্পী। উপস্থিত ছিলেন আইএএ’র সভাপতি মনোজ সাহা,  শিল্প বিশেষজ্ঞ শ্রী মৃণাল ঘোষ,  অধ্যাপক ডঃ সঞ্জয় মুখোপাধ্যায়,  চলচ্চিত্র সমালোচক সিদ্ধার্থ মাইতি ও দেবব্রত চক্রবর্তী সহ বহু শিল্পী। এদিনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকে চলচ্চিত্র নির্মাতা , চলচ্চিত্র শিক্ষক অর্জুন চক্রবর্তী জানান, “আমি মনে করি একমাত্র শিল্প চেতনার বিকাশের মধ্যে দিয়ে আমরা উন্নততর সমাজগঠনে অগ্রসর হতে পারব। এই অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারী সব শিল্পী ও অতিথিদের উদ্দেশ্যে আমি ধন্যবাদ জ্ঞাপন করছি। আইএএ’র সভাপতি মনোজ সাহা, সহ সভাপতি অমিত ভড়  ও ইন্ডিয়ান মিউজয়ামের তরফ থেকে এডুকেশন অফিসার সায়ন ভট্টাচার্যের প্রতি আমরা বিশেষভাবে কৃতজ্ঞ।”

এই বিশেষ দিনে কলকাতা জাদুঘর সাক্ষী থাকল বিশেষ চারুকলা প্রদর্শনীর। প্রদর্শিত হয় শিল্পী সুব্রত গঙ্গোপাধ্যায়,  প্রদীপ মৈত্র, সুযোগ বন্দ্যোপাধ্যায়, অমিত ভর, সুব্রত কর, সুব্রত দাস, সমীর সরকারের নানা শিল্প সৃষ্টি ও লাইভ পেইনটিং।

সঙ্গে ছিল ভারতীয় মার্গ সঙ্গীত ও যন্ত্র সঙ্গীতের আবহ। নববর্ষে কলকাতা সাক্ষী থাকল এক অসাধারণ শৈল্পিক সন্ধ্যার একথা বলাই যায়।

149560606_1955498754590550_7537541499495602122_oadvt-1advt-3149274739_1955175504622875_8761804105952090197_ognc-advt-6x4-for-webgif advtUntitled-2advt-4advt-5