খবর

নিজের এলাকায় রাজকীয় প্রত্যাবর্তন হাসনাবাদের বাবু মাস্টারের

basirhatসৌমাভ মণ্ডল: বসিরহাট মহকুমার হাসনাবাদ ব্লকের ভবানীপুর থেকে ২০১৮ সালে পঞ্চায়েত ভোটে জেলা পরিষদে তৃণমূলের সদস্য হয়ে জিতেছিলেন হাসনাবাদের ডাকসাইটে দাপুটে নেতা ফিরোজ কামাল গাজী ওরফে বাবু মাস্টার। তারপর উত্তর ২৪ পরগণা জেলা পরিষদের শিক্ষা ও ক্রীড়ার কর্মাধক্ষ‍্য ছিলেন। বিধানসভা ভোটের অনেক আগেই তিনি জেনে যান তৃণমূল রাজ্য নেতৃত্ব তাকে সমর্থন করছে না। তারপর তিনি উত্তর ২৪ পরগণা জেলা পরিষদের কর্মাধক্ষ‍্যের পদ থেকে পদত্যাগ করে বিজেপিতে যোগদান করেন। বেশ কয়েক দিন আগে বসিরহাট থেকে বিজেপির কর্মীসভা সেরে কলকাতার উদ্দেশ্যে রওনা দেওয়ার সময় মিনাখাঁ থানার বাসন্তী হাইওয়েতে তার গাড়িতে বোমা মারার অভিযোগ ওঠে। ঘটনায় যথেষ্টই আক্রান্ত হন তিনি। বিজেপি অভিযোগ করে তৃণমূলের বিরুদ্ধে, পাল্টা তৃণমূলের অভিযোগ বিজেপির গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের জেরেই ঐ ঘটনা। ঘটনায় উত্তাল হয় রাজ্য রাজনীতি। কলকাতায় একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। কেন্দ্রীয় সরকার নিরাপত্তা দেওয়ার পর শনিবার ভবানীপুর মডেল বাজারে নিজের বাড়িতে যান। তাকে বিজেপি কর্মী সমর্থকরা ফুল, মালা ও শঙ্খধ্বনি দিয়ে অভ্যর্থনা জানান। নিজের এলাকায় প্রত্যাবর্তনের পর ফিরোজ কামাল গাজী ওরফে বাবু মাস্টার তৃণমূলের দুর্নীতির বিরুদ্ধে সরব হন। পাশাপাশি বসিরহাট মহকুমার  আটটি বিধানসভা আসনেই বিজেপির জেতার ব্যাপারে আশাবাদী তিনি। তার এই প্রত্যাবর্তন নিয়ে বসিহাট মহাকুমার তৃণমূল কংগ্রেসের নেতা কৌশিক দত্ত বলেন, “বাবু মাস্টার কেমন নেতা আমরা সকলেই জানি। তার সমর্থনে আজকে যে গ্রামবাসীরা ভিড় জমিয়েছেন তারা শ্রদ্ধায় নয়, ভয়ে ভিড় জমিয়েছেন। আতঙ্কের পরিবেশ সৃষ্টি করা হয়েছে ভবানীপুরের ওই গ্রামগুলিতে।”