খবর

হুগলির গুড়াপে চায়ের দোকানে মদ, গাঁজা সহ বেশকিছু অবৈধ কারবারের অভিযোগে গ্রেফতার চায়ের দোকানের মালিক সহ দুজন

gurap-3প্রবীর বোস: গুড়াপ থানার অন্তগত নাদামপুর মোড়ে একটি চায়ের দোকানে মদ, গাঁজা সহ বেশকিছু অবৈধ কারবারের অভিযোগ। গতকাল সন্ধ্যায় গুড়াপ থানার পুলিশে গোপন সূত্রে খবর পেয়ে নাদামপুর মোড়ের চায়ের দোকানে হানা দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছালে চায়ের দোকানে থাকা বেশকিছু যুবক পালিয়ে যায়। চায়ের দোকানের মালিক সহ দুজনকে পুলিশ ধরে ফেলে। এই সময় চায়ের দোকানের মালিক স্ত্রী ধারালো অস্ত্র নিয়ে পুলিশ কর্মীদের কাছ থেকে চায়ের দোকানে মালিক সহ দুজনকে ছাড়াতে এলে গুড়াপ থানার পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এই সময় মহিলা আহত হন। তাকে চুঁচুড়ার ইমামবাড়া হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

অন্যদিকে পুলিশের সূত্রে জানা যায় ও গুড়াপ পঞ্চায়েতের উপ প্রধান মহ: হামিদ জানিয়েছেন, এই চায়ের দোকানে মদ, গাঁজা সহ চায়ের দোকানের অদূরে একটি ঝুপড়ির মধ্যে বেআইনি ব্যবসা হত। গুড়াপ থানার পুলিশের কাছে অভিযোগ করেছিলেন এলাকাবাসী।

এছাড়াও গতকাল রাতে গুড়াপ থানার পুলিশের কাছে গোপন সূত্রে খবর আসে। নাদামপুরের চায়ের দোকানে বেশকিছু যুবক ভীড় করে রয়েছে। সেই মত পুলিশ সেখানে যায়। পুলিশ দেখে বেশকিছু যুবক পালিয়ে যেতে সক্ষম হলেও। চায়ের দোকানের মালিক সহ দুজনকে পুলিশ ধরে ফেলে। এরপরই মহিলা ধারালো অস্ত্র নিয়ে এসে পুলিশের কর্মীদের আক্রমণ করে বলে অভিযোগ।

অন্যদিকে বিজেপির যুব নেতা সন্দীপ চক্রবর্তী এই ঘটনা সম্পর্কে বলেন, যে তিনজন কে ধরা হয়েছে তারা বিজেপির সমর্থক। তিনি আরও বলেন আহত মহিলা তার স্বামী ও ছেলেদের বাঁচাতে গিয়ে পুলিশের হাতে মার খেয়ে আহত হয়েছেন। তাকে চুঁচুড়া ইমামবাড়া হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। নাদামপুরে বিজেপির শক্তিশালী ঘাঁটি। তাদেরকে দুর্বল করে গুড়াপ থানার পুলিশ এই কাজ করেছে বিধায়কের নির্দেশ মত।

advt-5advt-4advt-2advt-3advt-1