খবর

গঙ্গারামপুর থানায় বিক্ষোভ গ্রামবাসীদের, ভাংচুর বিদুৎ দপ্তরের গাড়ী

gangarampur-5পল মৈত্র, দক্ষিণ দিনাজপুরঃ বৃহস্পতিবার দুপুরে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার গঙ্গারামপুর শহরে প্রায় ৫ হাজার প্রতিবাদী মানুষের বিক্ষোভে আকাশ পাতাল ফেটে পড়লো। প্রসঙ্গত, গত ৭ তারিখে গঙ্গারামপুর শুকদেবপুর গ্রামের জবা রায়কে ধর্ষন করে গলা কেটে নৃশংসভাবে হত্যা করে নরপিশাচরা। এরপরই ক্ষোভে ফেটে পড়ে সারা গ্রাম সহ জেলার মানুষ, অবিলম্বে দোষীদের গ্রেপ্তার ও ফাঁসির দাবী জানাতে থাকেন গ্রামের মানুষরা। এরপর গতকাল রাতে ভারত-বাংলাদেশ হিলি সীমান্ত থেকে পুলিশ অভিযুক্ত মহম্মদ পিন্টু সরকারকে গ্রেফতার করে। জানা গেছে, পিন্টু গঙ্গারামপুর হাসপাতাল এলাকার একটি ল্যাবে কাজ করেন। সে বিবাহিত এবং তার বিরুদ্ধে একাধিক বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কের অভিযোগ আছে। মৃতা জবা রায় ৬ মাসের অন্তঃসত্ত্বা ছিল বলে সুত্রের খবর,  অভিযুক্ত পিন্টু ভিন্ন ধর্মের বলে জবা রায় অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার কথা জানতে পেরে তাকে বিয়ে করতে অস্বীকার করে এবং তার জেরেই জবাকে ফোন করে ডেকে নিয়ে গিয়ে নদীর ধারে নৃশংস ভাবে গলা কেটে খুন করা হয় বলে অনেকে মনে করছেন।1efab-9a4f02_51435a5163204d4c9eb67ab6f3a56a68mv2 এদিন প্রায় ৫ হাজার প্রতিবাদী গ্রামবাসী হাতে প্ল্যাকার্ড নিয়ে গঙ্গারামপুর বাসষ্ট্যান্ড থেকে মিছিল করে থানার সামনে জমায়েত হয়। মিছিলে উপস্থিত ছিলেন রাজবংশী জন জাগরন চেতনা মঞ্চের সাধারন সম্পাদক বিপ্লব বর্মন ও গঙ্গারামপুর বিধানসভার প্রাক্তন বিধায়ক সত্যেন রায় সহ আরো অন্যান্যরা।3b749-9a4f02_0a1a6303df76450fb31ff36c7368e2a1mv2 এদিন প্রাক্তন বিধায়ক সত্যেন রায় ও রাজবংশী জন জাগরন চেতনা মঞ্চের সাধারন সম্পাদক বিপ্লব বর্মন প্রায় দুজনেই ক্ষোভের সুরে বলেন, জঘন্যতম ঘৃন্য কাজের শাস্তি ফাঁসী, আজ জবাকে যে ভাবে হত্যা করা হয়েছে এর কোন ক্ষমা নেই পাশাপাশি প্রশাসন সক্রিয় হওয়ায় মূল অভিযুক্ত ধরা পড়েছে, আর কোন মায়ের কোন যাতে শূন্য না হয় তার জন্য প্রশাসনের কাছে একটাই অনুরোধ দোষীদের ফাঁসী দিন যাতে আর কেউ এরকম ঘৃণ্য অপরাধ করতে দশবার ভাবে।

এরপর সত্যেন রায়, বিপ্লব বর্মন, নিকোলাস মার্ডী ও জবা রায়ের মা বোন সহ কয়েকজনের সাথে আইসি পূর্নেন্দু কুমার কুন্ডুর কথা বলে অবিলম্বে দোষীরা যাতে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী করেন। অন্যদিকে থানার সামনে জমায়েত গ্রামবাসীরা বিক্ষোভ দেখাতে থাকলে ওই পথ তাতে ভাংচুর চালানো হয়। এরপর পরিস্থিতি অগ্নিগর্ভ হয়ে উঠলে কমব্যাট ফোর্স ও বিশাল পুলিশ বাহিনী রাস্তায় নেমে বিক্ষোভকারীদের সরিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।92a03-9a4f02_3b93dab5c7d14f67afae52ceac3ab2d5mv2 এরপর অতিরিক্ত এসপি ডাব্লু ভুটিয়া, এসডিপিও বিপুল ব্যানার্জী ও আইসি পূর্নেন্দু কুমার কুন্ডুর সাথে বিশাল পুলিশ বাহিনী অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে পায়ে হেঁটে বাসষ্ট্যান্ডে টহল দেন। পরিস্থিতি এখন শান্ত হলেও জবা রায়ের গ্রামের মানুষদের মনে ক্ষোভ ও ক্রোধের আগুন জ্বলছে। (নিজস্ব চিত্র)

0d21b-9a4f02_2e8f603055494c9a9c101bc7308762c1mv2

8032e-9a4f02_f30a731df9274bea8c5fcc56307228d4mv2_d_1801_1201_s_2

294a8-9a4f02_f45cceadc93a463d8fc254485d0b8a25mv2

09828-9a4f02_2afa9dc21c6840f781c9711a60cb7e45mv2

9a4f02_c22b1f22589e428f84758f157fb83212~mv2.jpg