খবর

রক্তের সংকট মেটাতে অভিনব ভ্রাম্যমান রক্তদান শিবির

blood-goutam-haldar-5সঞ্জয় মুখোপাধ্যায়, কলকাতাঃ   রক্ত চাই- কিন্তু রক্ত কোথাও নাই। এই হাহাকার শুনতে আমরা অভস্ত্য হয়ে গেছি। আসলে আমাদের দেশে ঋতু’র পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে সবথেকে বড় যে সমস্যাটা আত্মপ্রকাশ করে সেটি ব্লাড ব্যাংক গুলিতে রক্তের আকাল। বিশেষ করে গ্রীষ্মের প্রচণ্ড দাবদাহে রক্তের চাহিদা বেড়ে যায় কয়েকগুণ বেশী। সাধারণ মানুষ তখন এক ফোঁটা রক্তের জন্য ব্লাড ব্যাংক গুলির দরজায় দরজায় নিষ্ফল আবেদন করতে থাকেন। আমরা আমাদের মধ্যে থেকে জনপ্রতিনিধি নির্বাচন করি আমাদের প্রয়োজনে সেই প্রতিনিধিকে আমাদের পাশে পাবো বলে। এমনিই এক সদা তত্‍পর, সদা জাগ্রত, সাধারণের জন্য নিবেদিত প্রাণ কলকাতা কর্পোরেশনের চার(৪) নং ওয়ার্ডের পুরপিতা এলাকার সকলের কাছের মানুষ গৌতম হালদার। গ্রীষ্মের ভয়াবহ এই রক্ত সংকটে দেশে চলা সাধারণ নির্বাচনের হাজার ব্যস্ততার মধ্যেও গৌতম বাবু শুধুমাত্র ভোটের কাজে নিজেকে আটকে না রেখে, সাধারণের কথা চিন্তা করে তাঁর ওয়ার্ড জুড়ে শুরু করে দিয়েছেন এক অভিনব রক্ত দান শিবির।

গৌতম বাবু তাঁর ৪ নং ওয়ার্ডের বিভিন্ন স্থানে ৮ দিন ব্যাপী ভ্রাম্যমান রক্তদান শিবির চালু করেছেন গত ২১ এপ্রিল থেকে। আজ এই শিবির ষষ্ঠ দিনে। গৌতম বাবু জানলেন, নির্বাচনের কাজের মধ্যে কেন্দ্রীয় ব্লাড ব্যাংকের শুভেন্দু বাবুর থেকে তিনি যখন জানতে পারলেন এই মুহূর্তের রক্তের আকালের কথা, তখন তিনি চুপ করে না থেকে সাধারণ মানুষের কথা মাথায় রেখেই তাঁর ওয়ার্ড জুড়ে এই ভ্রাম্যমান রক্তদান শিবিরের আয়োজন করেন। গৌতম বাবু জানলেন এই শিবিরের চতুর্থ দিনে এলাকার মহিলারা রক্ত দান করেন। আজকের আর এম রোডে আয়োজিত ভ্রাম্যমান শিবিরেও লক্ষ করা গেলো এই শিবিরকে কেন্দ্র করে সাধারণের মধ্যে ব্যাপক উত্‍সাহ ও উদ্দীপনা, পথচলতি মানুষ ও সাধারণের মধ্যে। গৌতম বাবু জানলেন এই কদিন শিবিরগুলিতে প্রায় ৫৫ থেকে ৬০ জন স্বেচ্ছা রক্তদাতা রক্ত দান করেছেন। শিবির চলবে আগামী ২৮ এপ্রিল পর্যন্ত। blood-goutam-haldar-6(নিজস্ব চিত্র)

ospite-advt.-web

k-advt-web

rerererer

banner advt1

gorumara