খবর

সাহিত্য অকাদেমির প্রতিষ্ঠা দিবসে আলোচনাচক্র

sathiya-academyসংবাদদাতাঃ  সাহিত্য অকাদেমির প্রতিষ্ঠা দিবস উপলক্ষে অকাদেমির প্রধান কার্যালয় নতুন দিল্লি ছাড়াও কলকাতা, চেন্নাই, মুম্বাই ও বেঙ্গালুরুর আঞ্চলিক দপ্তরগুলিতে ১২ই মার্চ, ২০১৯ নানা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। কলকাতায়, অকাদেমির দপ্তরে ‘মহাকাব্যিক নারী চরিত্রের আকর্ষণ- ‘সীতা ও দৌপদী’ শীর্ষক বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়। সাহিত্য অকাদেমির কলকাতার আঞ্চলিক সচিব ডঃ দেবেন্দ্র কুমার দেবেশ আমন্ত্রিত অতিথি ও দর্শকদের উদ্দেশ্যে স্বাগত ভাষণ দেন। তিনি পুরো অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন। বিশিষ্ট ঐতিহাসিক ও রাজ্যসভার প্রাক্তন সদস্য শ্রীমতী ভারতী রায় মূল আলোচনায় সীতা ও দ্রৌপদী ছাড়াও মহাকাব্যের অন্যান্য নারী চরিত্রগুলি – হিড়িম্বা, সুর্পনখা, কুন্তী ও সত্যবতীর মতো চরিত্রগুলির চিত্রায়ন ও বিশেষত্ব নিয়ে কথা বলেন।sathiya-academy-3 ডঃ ভারতী রায় বলেন, সীতার ব্যক্তিত্ব অসামান্য স্তরের। তিনিই একমাত্র নারী চরিত্র, যিনি স্বেচ্ছায় অগ্নি পরীক্ষার মধ্য দিয়ে তাঁর স্বামীকে ছেড়ে যান। এর কারণ হিসেবে তাঁর ধারণা, বাকিদের সামনে রামের নিজের স্ত্রীর পক্ষে দাঁড়ানোয় ব্যর্থতা। দ্রৌপদীর চরিত্রের বিষয়ে রাজ্যসভার প্রাক্তন এই সাংসদ মনে করেন, পাণ্ডব মহিষীর রাজনৈতিক চিন্তাভাবনার ধার স্পষ্ট। অধ্যাপিকা রায়, এই নারী চরিত্রগুলির আলোকে বিভিন্ন পুরুষ চরিত্রের মূল্যায়ন করেন। এছাড়া, তিনি মহাকাব্যিক নারী চরিত্রগুলির সঙ্গে দৈনন্দিন জগতের বাস্তব নারী চরিত্রগুলিরও তুলনা করেন। বক্তব্যের শেষে ছিল শ্রোতাদের সঙ্গে তাঁর একটি প্রশ্নোত্তর পর্ব। sahitya-academy-2019সাহিত্য অকাদেমির বাংলা উপদেশক পর্ষদের আহ্বায়ক ডঃ সুবোধ সরকার সমাপ্তি ভাষণে সকলকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।(সৌজন্যে পি.আই.বি., ছবি- অকাদেমি ফেসবুক পেজ)