খবর

বীরভূমে পিআইবি’র গণমাধ্যম কর্মশিবির “বার্তালাপ”

H2018113058992.jpgপি.আই.বিঃ কেন্দ্রীয় সহায়তাপুষ্ট বিভিন্ন প্রকল্প সম্বন্ধে সাংবাদিকদের অবগত করতে এবং এই প্রকল্পগুলি সম্পর্কে জনসাধারণের মধ্যে সচেতনতা বাড়াতে আজ (৩০শে নভেম্বর) বীরভূমের শিউড়িতে প্রেস ইনফরমেশন ব্যুরো (পিআইবি) কলকাতার পক্ষ থেকে একদিনের গণমাধ্যম কর্মশিবির “বার্তালাপ” অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। শিবিরে পিআইবি কলকাতার অতিরিক্ত মহানির্দেশক শ্রীমতী জেন নামচু বলেন, এ ধরণের কর্মশিবির আয়োজনের উদ্দেশ্য হল গণমাধ্যমের সহযোগিতায় জনসাধারণের কল্যাণে গৃহীত বিভিন্ন কেন্দ্রীয় সরকারি প্রকল্পগুলি সম্বন্ধে সকলকে সচেতন করে তোলা। শ্রীমতী নামচু জনসাধারণের কল্যাণে গৃহীত কেন্দ্রীয় সহায়তাপুষ্ট প্রকল্পগুলির সুফল সম্পর্কে সাধারণ মানুষকে সচেতন করে তোলার জন্য আরও বেশি করে প্রচার করতে সাংবাদিকদের আহ্বান জানান। তিনি আরও বলেন, বর্তমান ডিজিটাল যুগে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার বৈঠক এবং সিদ্ধান্ত ইউটিউবে সরাসরি সম্প্রচার করা হচ্ছে। শিবিরে বিশ্বভারতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিকতা ও গণমাধ্যম বিভাগের অধ্যাপক তথা প্রধান শ্রী বিপ্লব লোহো চৌধুরি সহ বোলপুরের প্রবীণ সাংবাদিক শ্রী স্বপন কুমার ঘোষ, পিআইবি থেকে প্রকাশিত সংবাদ, নিবন্ধ ও অন্যান্য তথ্য মুদ্রণ এবং বৈদ্যুতিন মাধ্যম কিভাবে কাজে লাগিয়ে ভালো খবর তৈরি করতে পারে তা বিশদে ব্যাখ্যা করেন। জেলাস্তরে কর্মরত সাংবাদিকদের কাছে পিআইবি-র বিভিন্ন সংবাদ ও তথ্যের গুরুত্বের কথা উল্লেখ করে কলকাতা কার্যালয়ের উপ-নির্দেশক শ্রী অজয় মহমিয়া বলেন, তৃণমূল স্তরের মানুষের কাছে সঠিক তথ্য পৌঁছে দিতে সরকারি প্রকল্পগুলি সম্পর্কে বিশদ অবগত হওয়া সাংবাদিকদের কাছে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার। প্রকৃত তথ্য প্রচারে পিআইবি-র সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সমন্বয় বজায় রেখে সাংবাদিকদের কাজ করার জন্য তিনি আহ্বান জানান। জেলার অগ্রণী রাষ্ট্রায়ত্ত ইউকো ব্যাঙ্কের ম্যানেজার শ্রী রত্নাকর কুন্ডু কেন্দ্রীয় সরকারের বিভিন্ন আর্থিক অন্তর্ভুক্তিকরণ প্রকল্প যেমন – জন ধন যোজনা, মুদ্রা যোজনা প্রভৃতির সাফল্যের কথা উল্লেখ করে এই জেলায় ‘স্টার্ট-আপ’ বা নতুন শিল্প স্থাপনে তাঁর ব্যাঙ্কের পক্ষ থেকে সহায়তার কথা ব্যাখ্যা করেন।H2018113058993.jpg পিআইবি কলকাতার আধিকারিক শ্রী অজয় মহমিয়ার সঙ্গে সাংবাদিকদের প্রশ্নোত্তর পর্বের মধ্য দিয়ে কর্মশিবির শেষ হয়। এই শিবিরে তিনজন মহিলা সাংবাদিক সহ প্রায় ৭০ জন গণমাধ্যমের প্রতিনিধি যোগ দেন। এঁদের সক্রিয় অংশগ্রহণের মধ্য দিয়ে এই শিবির সাফল্যমণ্ডিত হয়ে ওঠে। এঁরা সকলেই এ ধরণের শিবির আয়োজনের জন্য পিআইবি কলকাতার ভূমিকার প্রশংসা করেন। সমগ্র কর্মশিবির পরিচালনার দায়িত্বে ছিলেন কার্যালয়ের আধিকারিক শ্রীমতী শ্রীজাতা সাহা সাহু। কার্যালয়ের আধিকারিক শ্রী সম্রাট বন্দ্যোপাধ্যায়, শিবিরে আগত সকলের প্রতি ধন্যবাদজ্ঞাপন করেন। কার্যালয়ের বরিষ্ঠ কর্মী শ্রী শান্তনু সিনহা পিআইবি-র ভূমিকা সম্পর্কে অডিও-ভিস্যুয়াল ব্যবস্থার মাধ্যমে বর্ণনা করেন। নতুন রূপে সুসজ্জিত পিআইবি-র ওয়েবসাইটে বিভিন্ন ভাষায় সংবাদ তথা তথ্য প্রচারের বৈচিত্র্যও তিনি তুলে ধরেন। (ছবি পি.আই.বি.)

 

qwewewewe