খবর

ফ্লেক্সি ফেয়ার আরও যাত্রীবান্ধব

নিজস্ব সংবাদঃ ট্রেন সফরের ক্ষেত্রে ভাড়ায় যাত্রীদের সুবিধা দিতে

1234ert.jpg

 ২০১৬-র ৯ই সেপ্টেম্বর ফ্লেক্সি ফেয়ার প্রকল্প শুরু হয়। প্রকল্পের দরুণ রেলের রাজস্ব বৃদ্ধি পেলেও প্রথম দিকে যাত্রী সংখ্যায় ঘাটতি দেখা দেয়। পরে অবশ্য যাত্রী সংখ্যা ধীরে ধীরে বাড়তে থাকে। ফ্লেক্সি ফেয়ার ব্যবস্থাকে আরও যুক্তিসঙ্গত করে তুলতে আট সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়। কমিটিকে ফ্লেক্সি ফেয়ার ব্যবস্থা পর্যালোচনা এবং একে আরও যাত্রীবান্ধব করে তোলার দায়িত্ব দেওয়া হয়। কমিটির সুপারিশের পাশাপাশি, কম্পট্রোলার অ্যান্ড অডিটর জেনারেলের রিপোর্ট এবং যাত্রী প্রতিনিধিদের মতামতের ভিত্তিতে ফ্লেক্সি ফেয়ার ব্যবস্থা পর্যালোচনা করা হয়।এই প্রেক্ষিতে ভারতীয় রেল ফ্লেক্সি ফেয়ার ব্যবস্থা পর্যালোচনা করে বেশ কিছু পরিবর্তন নিয়ে এসেছে। গত বছর যে সমস্ত ট্রেনে মাসিক ভিত্তিতে যাত্রী সংখ্যা গড় ৫০ শতাংশের কম ছিল সেই ট্রেনগুলিতে ফ্লেক্সি ফেয়ার ব্যবস্থা তুলে দেওয়া হচ্ছে। এরকম ট্রেনের সংখ্যা ১৫টি। গত বছর যে সমস্ত ট্রেনে মাসিক ভিত্তিতে ট্রেনের যাত্রী সংখ্যা গড় ৫০ থেকে ৭৫ শতাংশ ছিল, সেই সমস্ত ট্রেনে যে তিন মাস কম যাত্রী সফর করেন, সেই সময় ফ্লেক্সি ফেয়ার প্রত্যাহার করা হয়েছে। এই ধরণের ট্রেনের সংখ্যা ৩২।সমস্ত শ্রেণীতে বর্তমানের সর্বোচ্চ ঊর্ধ্বসীমা ১.৫ গুণ থেকে কমিয়ে ১.৪ গুণ করা হচ্ছে। টু-টিয়ার, থ্রি-টিয়ার ও চেয়ারকার শ্রেণীতে যাত্রী সংখ্যা বাড়াতে ফ্লেক্সি ফেয়ারযুক্ত সমস্ত ট্রেনে এবং যাত্রা শুরুর চারদিন আগে পর্যন্ত হামসফর ট্রেনগুলির যে নির্দিষ্ট শ্রেণীতে যাত্রী সংখ্যা ৬০ শতাংশের কম থাকে, সেসব ক্ষেত্রে শেষ ভাড়ায় ২০ শতাংশ ছাড় দেওয়া হবে। এছাড়াও, ৭০ শতাংশ পর্যন্ত যাত্রী সংখ্যার ক্ষেত্রে ২০ শতাংশ, ৭০ থেকে ৮০ শতাংশ পর্যন্ত যাত্রী সংখ্যার ক্ষেত্রে ১০ শতাংশ ছাড় দেওয়া হবে।  যাত্রী সংরক্ষণ ব্যবস্থায় প্রয়োজনীয় পরিবর্তন করার পর আগাম সংরক্ষণ সময়সীমা, অর্থাৎ চার মাস সময়সীমা থেকে ভাড়ায় এই পরিবর্তনগুলি কার্যকর করা হবে।গত বছর (২০১৭-১৮) যে ১৫টি ট্রেনে মাসিক ভিত্তিতে যাত্রী সংখ্যা গড় ৫০ শতাংশের কম ছিল সেই ট্রেনগুলিতে ফ্লেক্সি ফেয়ার ব্যবস্থা তুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। এই ১৫টি ট্রেনের মধ্যে হাওড়া-পুরী শতাব্দী এক্সপ্রেস (ট্রেন নং – ১২২৭৭) ট্রেনটিও রয়েছে। একইভাবে, গত বছর (২০১৭-১৮) যে ৩২টি ট্রেনে মাসিক ভিত্তিতে ট্রেনের যাত্রী সংখ্যা গড় ৫০ থেকে ৭৫ শতাংশ ছিল, সেই সমস্ত ট্রেনে যে তিন মাস কম যাত্রী সফর করেন, সেই সময় ফ্লেক্সি ফেয়ার প্রত্যাহার করার সিদ্ধান্ত হয়েছে। এই শ্রেণীর ট্রেনগুলির মধ্যে নিউ জলপাইগুড়ি-হাওড়া শতাব্দী এক্সপ্রেস (ট্রেন নং – ১২০৪২) ট্রেনটিও রয়েছে।(ছবি সৌজন্যে গুগুল)