খবর

কোজাগরীতে মেতে উঠেছে বাংলা

20151027নিজস্ব সংবাদদাতা: বাজারে আগুন, তারই মধ্যে সারা বাংলা আজ মেতে উঠেছে ধনদেবী লক্ষ্মীর আরাধনায়। সারা বাংলা জুড়ে প্রায় প্রতিটি গৃহস্থ বাড়ি ও সর্বজনীন দুর্গা পূজা মন্ডপগুলি সেযে উঠেছে লক্ষ্মী দেবীর আরাধনায়। কোজাগরী পূর্ণিমায় আপামর বাঙালি রত হয় ধন ও ঐশ্বর্যের অধিষ্ঠাত্রী দেবী শ্রী শ্রী লক্ষ্মীদেবীর পুজোয়। কোজাগর শব্দটি এসেছে ‘কো জাগর্তি’ থেকে, যার অর্থ ‘কে জেগে আছো?’ সকলের বিশ্বাস, এ রাতে মা লক্ষ্মী ধন সম্পদ দিতে যে কোনো সময় ঘরের দরজায়  এসে ‘কো জাগর্তি’ বলে ডাক দেন। ধর্ম মতে,জেগে থাকা মানুষেরাই এ ধন লাভের অধিকারী হন।  প্রাচীন শাস্ত্র অনুসারে এই পূর্ণিমায় রাতে ঘুমোতে নেই কারণ কোজাগরী পূর্ণিমা রাতে দেবী লক্ষ্মী ধনধান্যে ভরিয়ে দিতে ভক্ত গৃহে পূজা নিতে আসেন। শারদীয় দুর্গোৎসব শেষে প্রথম পূর্ণিমা তিথিতে এই পূজা হয়ে থাকে। তাইতো আজ ধনী-দরিদ্র নির্বিশেষে সকলের ঘরে ঘরে ধনদেবীর আরাধনা। ধানের শীষ, মঙ্গলঘট, নারকেল নাড়ু, পাঁচ রকম ভাজা, খিচুড়ি ভোগ আর সারা বাড়ি সাজিয়ে তোলা হয়েছে আলপনায়। লক্ষ্মী মানে শ্রী, সুন্দর। অতীত কালে লক্ষ্মীদেবীকে মহাশক্তি রূপে আরাধনা করা হত। সদ্য শেষ হওয়া দুর্গাপুজোর রেশ ধরে কাঁচা বাজার ও অন্যান্য উপকরণের দাম আকাশছোঁয়া। বাজেটে কিছুটা হলেও কাঁটাছেঁড়া করে বাঙালি লক্ষ্মীলাভের আশায় আজ ব্রতী হয়েছে দেবীর আরাধনায়।