খবর

গৃহবধূ হত্যায় উত্তাল দেজহাট গ্রাম; ঘটনাস্থলে অগ্নিমিত্রা

yyyyy

সুস্মিতা মুখার্জী, সংবাদ প্রতিখন: আমাদের স্বাধীন দেশে গৃহবধূ হত্যার ঘটনা প্রায়শই প্রকাশ পায়। এযেন নিত্য নৈমিত্তিক ঘটনা; ঘরে ঘরে গৃহবধূদের নিপীড়ন করা এবং শেষমেশ তার পরিণতি পৌঁছায় মৃত্যুতে। ঠিক এমনই এক ঘটনা ঘটেছে উত্তর চব্বিশ পরগনা জেলার বিষ্ণুপুরের দেজহাট গ্রামে। এই গ্রামেরই এক মধ্যবিত্ত পরিবারের মেয়ে মউকে তার শ্বশুর বাড়ির তরফে পুড়িয়ে মারার অভিযোগ ওঠে। বর্তমানে মউয়ের একটি সাত বছরের ছেলে আছে। মউয়ের স্বামী এবং শ্বশুরবাড়ির অন্যান্য লোকেদের বিরুদ্ধে তাঁকে জ্যান্ত পুড়িয়ে মারার অভিযোগ উঠেছে। এই ঘটনার পরই এলাকায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়।

এই খবর শুনে  সেখানে গিয়ে উপস্থিত হন বিজেপির মহিলা মোর্চার সভানেত্রী অগ্নিমিত্রা পাল। ঘটনাস্থলে গিয়ে ঘটনাটির বিস্তারিত জেনে তিনি গৃহবধূর পরিবারের পাশে দাঁড়ান এবং তাদেরকে সুবিচারের আশ্বাস দেন। উনি বলেন, “মউকে এভাবে পুড়িয়ে মারার মত ঘটনা আরো ঘটছে, আমরা এর সুবিচার চাই, এবং আমরা পুলিশের কাছেও যাবো এই ব্যাপারে”। তিনি আরো জানান, “এভাবে একটি মেয়েকে জ্যান্ত পুড়িয়ে মারার মতো ঘৃণ্য অপরাধের জন্য তার শ্বশুরবাড়ির লোকেদের উপযুক্ত শাস্তি দাবি করছি এবং মউয়ের সাত বছরের ছেলের হেফাজত যেন মউয়ের বাবা মায়ের ওপর আসে তার জন্য আমরা ভারতীয় জনতা পার্টির মহিলা মোর্চার পক্ষ থেকে মহিলা উকিল আনার ব্যবস্থা করছি”। এই ঘটনার প্রতিবাদে চড়াও হয়েছে গোটা গ্রাম।

Untitled-2

স্হানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, এই ঘটনার পর উমদা থানার  পুলিশের কাছে গেলে প্রথমে পুলিশ অভিযোগ নিতে রাজি হয়নি, পরে অবশ্য গ্রামবাসীদের জোরাজুরিতে অভিযোগ নেয় এবং মউয়ের স্বামীকে থানায় নিয়ে যায়, যদিও এখনও মউয়ের শ্বশুরবাড়ির অন্যান্য সদস্যরা পলাতক। মেয়ের সাথে ঘটে যাওয়া এমন ঘটনায় স্বভাবতই ভেঙে পড়েছেন মউয়ের বাবা মা, একটু সুবিচারের আশায় তারা দিন গুনছেন।

output_9W9bpBgif advtUntitled-1Untitled-3advt-4advt-1advt-3