খবর

২৬এ মানববন্ধনে অভিযান

29573077_1762098587183795_1পথিক মিত্র, কলকাতাঃ আমাদের সমাজে নারীরা সদাই নানান আইনসঙ্গত সুবিধা ভোগ করে থাকেন। এমন একটা সময় আমাদের এই ভারতবর্ষে ছিলো যখন আমাদের দেশের পুরুষরা সমাজে নিজেদের আধিপত্য কামেয়ের জন্য নারীদের নানা ভাবে অবহেলিত ও লাঞ্ছিত করতো। সময়ের ও যুগের পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে দেশের আইন ব্যবস্থায়ও এসেছে নানা পরিবর্তন। নারীদের জন্য আজ দেশে রয়েছে নানান আইন, রয়েছে নারী কমিশন।এই সকল আইনের কারণে আজ দেশের নারী সমাজ নিজেরা নিজেদের কথা বলতে, নিজেরা সমাজে মাথা উঁচু করে বাঁচতে শিখেছে। তবে এর সঙ্গে সঙ্গে যে বিষয়টি ভয়াল-ভয়ংকর ভাবে মাথাচারা দিয়ে উঠে সমাজের বুকে সৃষ্টি করেছে সৃষ্টিকর্তার দুই মহান সৃষ্টি’র মধ্যে এক ভয়ংকর বিভাজন রেখা যা আগামীর পক্ষে আমাদের সমাজে বয়ে নিয়ে আসতে চলেছে এক মহাপ্রলয়। আজ সমাজে একটু লক্ষ করলেই দৃষ্টিগোচর হয় নারীদের রক্ষা করার আইনকে অবলম্বন করে সমাজে একদল নারী পুরুষদের করে চলেছেন নানা ভাবে অত্যাচার। একদল নারী আজ আইনের সহায়তায় (সহায়তা না বলে দুর্বলতাই বলা শ্রেয়) পুরুষদের করে চলেছেন নানা ভাবে পর্যদূস্ত। একজন মহিলার মৌখিক অভিযোগ’ই একজন পুরুষকে বানিয়ে দিচ্ছে আসামী। আজও আমাদের দেশের সকল নিপীড়িত পুরুষ সমাজের জন্য কোনও নির্দিষ্ট আইন প্রস্তুত হয় নি। আর ঠিক এর’ই সুযোগ নিচ্ছে একদল স্বার্থান্বেষী নারী।

আমদের দেশে একটা কথা সর্বজনবিদিত, সেটি হ’ল নারী-পুরুষের সমান অধিকার। বাস্তব কিন্তু উল্টো চিত্রই তুলে ধরছে আমাদের সম্মুখে। আর ঠিক এই কারণেই আজকের ভারতবর্ষে’র নিপীড়িত পুরুষের দল সর্বসমক্ষে আওয়াজ তুলেছে সারা দেশে চাই লিঙ্গ নির্বিশেষে একটা নিরপেক্ষ আইন, যে আইনে নারী-পুরুষ সবার থাকবে সমান অধিকার। পুরুষদের এই অধিকারের কথা তুলে ধরতে আজ সারা ভারত জুড়ে শুরু হয়েছে ‘মেনটু’ আন্দোলন। এই আন্দোলনে পিছিয়ে নেই আমাদের রাজ্য পশ্চিমবঙ্গও। এই রাজ্যের এমনই এক সংগঠন ‘অভিযান’, যাদের সদস্যরা বিগত কয়েকবছর ধরে পুরুষদের প্রতি এই বৈষম্যের বিরুদ্ধে সমানতালে আন্দোলন ও জনজাগরণ করে চলেছে। উলেক্ষ্য অভিযানের সদস্যরা কিন্তু সকলেই পুরুষ নন, অভিযানের অভিযান চলছে নারী-পুরুষ উভয়ের মিলিত প্রচেষ্টায়। অভিযান এর পক্ষে গৌরব রায় আমাদের জানাচ্ছিলেন আমাদের দেশে পুরুষদের জন্য কোন আইন নেই, তারাও নির্যাতিত কিন্তু বলার জন্য কোন মঞ্চ নেই, কেন্দ্র হোক বা রাজ্য, কোন সরকার’ই তাদের দিকটা বিবেচনা করে দেখে না। দেশের সংবিধান নিরপেক্ষ অথচ পুরুষরা আজও সঠিক বিচার থেকে বঞ্চিত। তাই দেশে লিঙ্গ নিরপেক্ষ আইন এর দরকার, দরকার পুরুষ কমিশনের। আর সেই দাবিতেই পথে নেমেছে অভিযান, এবং তাঁরা আগামীতে তাঁদের এই দাবিকে প্রতিষ্ঠা করার লক্ষে অবিচল।

আর ঠিক এই উদ্দেশ্যে আগামী ২৬ মে, ২০১৯, রবিবার তাঁরা কলকাতার প্রাণকেন্দ্র ধর্মতলার ওয়াই চ্যানেল থেকে কলকাতা সাংবাদিক ক্লাব পর্যন্ত পুরুষ কমিশনের দাবি জানিয়ে আয়োজন করেছে একটি পদযাত্রা’র। এর সঙ্গে সঙ্গে ওই দিনই তাঁরা কলকাতা প্রেস ক্লাবের সামনে একটি অভিনব মানববন্ধন কর্মসূচীও পালন করতে চলেছে। অভিযানের অন্যতম মুখ্য দেবাংশু ভট্টাচার্য বলেন আমাদের দেশের অধিকাংশ শহীদ হলেন পুরুষরা। দেশের সেই সকল বীর শহীদদের প্রতি তাঁরা জানায় তাঁদের অন্তরের শ্রদ্ধা ও নমস্কার, এবং ২৬ তারিখেই তাঁরা মোমবাতি জ্বালিয়ে দেশের সেই সকল মহান শহীদ পুরুষদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করবেন বলে দেবাংশুবাবু জানান। দেবাংশুবাবু ও গৌরববাবু নারী-পুরুষ নির্বিশেষে সকলকে ওইদিন লিঙ্গ নিরপেক্ষ আইন ও পুরুষ কমিশনের দাবিতে, লিঙ্গ বিচার না করে মহিলাদেরও কঠিন শাস্তির দাবি জানিয়ে, পিতার অধিকার সুনিশ্চিত করতে অভিযান এর শান্তিপূর্ণ পদযাত্রা ও দেশের সকল বীর পুরুষ শহিদদের আত্মার শান্তি কামনা করে প্রেস ক্লাবের সামনে মোমবাতি প্রজ্জ্বলন, মানব বন্ধন কর্মসূচীতে সবাই কে আহ্বান জানান। (ছবি-সংগৃহীত)

Kristy_photo-class-advt-for-web

GNC-Advt-6x4-for-web

k-advt-web

ADVT

rerererer

11429670_863411723736037_573517661987616256_n

banner advt1